Product Tag: কবিতা

কবিতা

(Showing 1 – 12 products of 25 products)

Show:

ছবি ও চেনাগন্ধের মেটাফর

$ 1.41 25% Off

ধুন-জলে জেগেছি নোঙর

$ 1.54 25% Off

বোধ বৃক্ষের জানালা

$ 1.32 25% Off

Dam Joginir Tal

Highlights:

মাথার ওপর ছাদ না থাকলেও বাঁচা যায়
ছিন্নবীণা নিয়ে কত মানুষেরতো পথই ছাদ…তারপরও
পৃথিবীতে আছে কতো নানারকম মাথা রাখার ঠাঁই

একবার এক ট্রেনে মাথাগুঁজে অচেনা স্টেশনে নেমে
যাত্রাপালায় কাটালাম পুরোরাত… খড়ের গাদায় ভোর
কেউ নেই চলে গেছে সবাই, একা বসে আছি
যাত্রার নর্তকী এসে বললো চল তাঁবুর ভেতর,
দু’জনা মরি

এই মরণ মরণ খেলায় ভালোই ছিলাম বেশকিছু দিন
একরাতে নর্তকী তার নাভিভূমে শিশুমুখ এঁকে বললো
Ñচল পালিয়ে বাঁচি অন্যকোনো মদির ছাদের নিচে

কী হতো এমন মরণে বাঁচলে…
অথচ পালিয়ে এলাম ভোরের দুয়ার ঠেলে

দম-যোগিনীর তাল

$ 1.54 25% Off

Bala Tomar Kushul Shuni

Highlights:

বিমূর্ত ভাবনার মূর্ত প্রকাশ কবিতা। কবি ঘোরলাগা নেশার ঘোরে মননে সৃষ্টি করেন কবিতার অন্তর্নিহিত ভাব। অন্তর্নিহিত ভাবে কবি ভাবনার শিল্প-দ্যোতনায় তৈরি হয় নান্দনিকতা। সংবেদনশীল কবিমনই কবিতার জন্মভূমি। কবিমন জীবন ও জগতের সংস্পর্শে এসে ভাবাবেগে স্পন্দিত হয়ে ছন্দিত বাণী বিকশিত করে। কবিতার ছন্দময় শরীরে চরম শৈল্পিক উৎকর্ষতায় কবি কবিতার আত্মা সৃষ্টি করেন। চিত্রকল্প, রূপকল্প, উপমা, উৎপ্রেক্ষা, অলঙ্কার, চৈতন্যে মুগ্ধতার আবেশ ইত্যাদি দিয়ে সাজিয়ে তোলেন দেহসৌষ্ঠব। কবিতা হয়ে ওঠে আলো-আঁধারি। বোঝা না বোঝার রহস্য জাদু প্রতিভাত। যেন শীতের শেষ বিকেলের রোদ, ছুঁতে ছুঁতে না ছোঁয়া। বাঁশের ঝাড়ে হঠাৎ ওঠা ক্ষ্যাপা বাতাসের চেনা অথচ অচেনা সুর। ডঃ হুমায়ূন আজাদ বলেছেন, ‘কবিতা বোঝার জিনিস নয়। কবিতা অনুভবের, উপলব্ধির।’ কবিতা দুজ্ঞেয় কিন্তু স্বতঃস্ফূর্ত প্রণোদনা। বাস্তবের সঙ্গে কল্পনার, নিজের সঙ্গে অন্যের, বর্তমানের সঙ্গে অবর্তমানের, সমকালের সঙ্গে মহাকালের যোগ যত নিবিড় হয় কবিতা তত মহার্ঘ হয়ে ওঠে। কবির বিমূর্ত ভাবনায় কবিতা কখনো শোকাহত হৃদয়ের আর্তনাদ, বেদনা বিধুর কান্না, আবার কখনো অধিকার বঞ্চিত শোষিত, নিপীড়িত মানুষের ধ্বনি এবং স্বাধীনতা মন্ত্রে উজ্জীবিত সৈনিক। কবিতা এভাবেই কালের প্রতিভূ হয়ে এসেছে। হয়ে উঠেছে শাশ্বত। কবির ভাব প্রকাশের সর্বোৎকৃষ্ট মাধ্যম কবিতা, কেননা এই শিল্পটি নান্দনিকতা ও জীবনমুখীনতায় ভরপুর। কবি এর মাধ্যমে বুদ্ধিভিত্তিক স্ফুরণ ও মননশীলতার নিখুঁত চিত্রকর্মটি সম্পাদন করতে পারেন।
কবিতার ভেতরে থাকে উন্মাদনা, উত্তেজনা, ভাব-সাধনা। যে কোনো শিল্পের ভাবই প্রধান। কবির কবিতার ছন্দ, বুনন, অলঙ্করণ, রস ইত্যাদির ভিন্নতা প্রাপ্তি হয় বটে, কিন্তু সংবেদনশীলতা অপূর্ণ থাকে না। ক্ষুণœ হয় না শিল্পগুণ। কবিতা বিশুদ্ধ মননচর্চার ফসল। যে ফসলের পরিচর্যা কবি নিরন্তর করেন। তবে কবিতার আত্মা ও শরীরের শৈল্পিক আচ্ছাদনই কবিতার সার্থকতা। কবিতা বহুরৈখিক, সরল একরৈখিকভাবে সংজ্ঞায়িত করা যাবে না। কবিতা বোদ্ধারা অনেক কথা বলেছেন। কীটস মনে করেন, কবিতা যুদ্ধ করবে তার সূক্ষ্ম অপরিমেয়তা, ঝংকারে নয়। বোদলেয়ার কবিতাকেই কবিতার শেষ কথা বলেছেন। তাই কবিতা নিয়ে বলা যায়, ‘বল বল তোমার কুশল শুনি, তোমার কুশলে কুশল মানি।’

বল তোমার কুশল শুনি

$ 1.13 40% Off

হৃদ মাটি

Highlights:

Sydney-র মতে “Poetry is the greatest of all arts.” কবিতা হচ্ছে সবচেয়ে প্রাচীন শিল্প যা অদৃশ্য আলোর বিচ্ছুরণে জ্বলে ওঠে। আমরা চশমায় চোখের উপর যে কাচ ব্যবহার করি পৃথিবীটা আমাদের কাছে সে রকমই লাগে। অর্থাৎ কাচের রঙ যদি লাল হয় তবে পৃথিবীর সব কিছু রঙিন দেখায় আবার সে রঙ যদি সবুজ হয় তবে সবকিছু সবুজ দেখায়। এভাবে দৃশ্যত রঙের ভেতরেই ঘুরপাক খায় আমাদের বাইরের দৃষ্টি। এ দৃষ্টি যখন অন্তরাত্মায় মিশে যায় তখন তার নিজস্ব একটা ক্ষেত্র গড়ে। সেখান থেকেই বেরিয়ে আসে একটা প্রতিফলন। আর সেটাই হচ্ছে চিন্তার বহিঃপ্রকাশ। এই চিন্তার বহিঃপ্রকাশ বিভিন্নভাবে ঘটতে পারে। সেটা হতে পারে কথোপকথনে, বক্তৃতায়, গল্প, কবিতা, প্রবন্ধ, উপন্যাস ইত্যাদি বিভিন্ন মাধ্যমে। আর কবিতা হচ্ছে সবচেয়ে শক্তিশালী অনুভূতির স্বতঃষ্ফূর্ত বহিঃপ্রকাশ। পৃথিবীর যে কোন জাতি হোক সে শিক্ষিত বা বর্বর কবিতা মহলে তার বিচরণ অবাধ। এই নিরবচ্ছিন্ন যাত্রায় কবিতা একটি সমৃদ্ধ শিল্প। একজন গুণমুগ্ধ কবির কবিতা হবে উপভোগ্য। অর্থাৎ তিনি বইতে থাকেন কখনো প্রমত্তা সাগরের মতো, কখনো বিকেল বেলার স্নিগ্ধ ঝির ঝির বাতাসে বয়ে চলা মৃদু স্রোতের মতো। কবি মাহবুব জন তাঁর ‘হৃদ মাটি’ কাব্যগ্রন্থে জীবনের প্রেম-ভালোবাসা, রাজনীতি, সমাজ, প্রকৃতি ইত্যাদি বিষয়গুলো গভীর চেতনা ও দৃষ্টিপাতের মধ্য দিয়ে সমুদ্র অথবা নদীর জলে ভেসেছেন। পাঠকের চোখ সেই মতো মেতে উঠুক হৃদয়ের গহীনে।

মোহা: ইব্রাহিম
অবসরপ্রাপ্ত সহযোগী অধ্যাপক
ও বিভাগীয় প্রধান (ইংরেজি বিভাগ)
নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ
মুক্তিযোদ্ধা, কবি, লেখক ও সাহিত্য সংগঠক।

হৃদ মাটি

$ 1.13 40% Off

কফিন কাঠের ঘুম

Highlights:

সালু আলমগীর কবিতার রূপদক্ষ কারিগর। সহজ ও গভীর উচ্চারণে তিনি আবেগ ও বৌদ্ধিক উপলব্ধিকে একই তারে বেঁধে রাখতে সক্ষম। তিনি ভিড়ের মুখ নন, নিজস্ব স্বরের অধিকারী এক ধ্যানী ঋষি।

তিনি যেমন মানবমনের গূঢ় সংবেদনের কবি, একইসঙ্গে সমাজ-রাষ্ট্রের ভ্রষ্টাচারের বিরুদ্ধে এক দ্রোহের প্রতীক। নিরীক্ষার নামে তিনি শেকড়বাকড়হীন কবিতার জন্ম দেননি বরং জীবন থেকেই রূপ-রস নিঙড়ে নিয়ে তৈরি করেছেন এক রহস্যের পৃথিবী।

কবির কবিতাপাঠে পাঠকের আনন্দস্নান হোক। মহাকাল দূর থেকে দেখুক।

-সরদার ফারুক

কফিন কাঠের ঘুম

$ 1.48 40% Off

Dhundumar

Highlights:

আকাশের বুকে মানুষের পা হাঁটে না, চোখ হাঁটে। দিগন্তের দিকে যেই চোখ পড়ে মন ছুটে যায় নিমিষে। এই যে চোখের সাথে মনের অন্তর্নিহিত যোগসূত্র সেখানেই কবিতার বসবাস। কবিতা মানুষকে আকাশে হাঁটায়, দিগন্তে ঘুরায় আর সৌন্দর্যের আতিশয্যে বসবাস করায়। বর্তমানে বিজ্ঞানের যে অভূতপূর্ব উন্নয়ন, এই যে আমাদের সমৃদ্ধ ইতিহাস, দর্শন, ভূগোল- এসবের সুন্দর ও নান্দনিক প্রতিফলন মেলে কবিতায়। সমালোচক কবি Arnold কবিতাকে বলছেন, ‘Criticism of life.’ সিডনি তাঁর ‘An Apology for Poetry’-তে কবিতাকে দেখছেন ‘A divine gift’ হিসেবে। আমরা বাঙালি। বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। ভাষার জন্য আমাদের প্রাণ দিতে হয়েছে। আমাদের দেশ বাংলাদেশ। দেশের জন্য লক্ষ লক্ষ জনতার প্রাণ গেছে। ভাষার জন্য, দেশের জন্য যে মানুষটি আমাদের পথ হাঁটিয়েছেন তিনি হচ্ছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

কিছু বিপথগামী সেনাবাহিনীর হাতে বঙ্গবন্ধুর প্রাণহরণ কবি মাহবুব জন-কে গভীরভাবে আলোড়িত করে। সৃষ্টিশীল মানসপটে নতুন প্রজন্মের কবি মাহবুব জন দেশ, মাটি তথা মাতৃভূমি, সমাজ, গোষ্ঠী, চারপাশের দৃশ্যাবলী- তীক্ষè অনুভূতির এক উজ্জ্বল আলোকছটা তাঁর এ ‘ধুন্ধুমার’ কাব্যগ্রন্থটি। যেমনটি Arnold তাঁর`The Study of Poetry’ -তে বলেছেন, ‘Greatness of matter is inseparable from the greatness of manner’- পাঠক অনায়াসেই মাহবুব জন-এর ‘ধুন্ধুমার’ কাব্যগ্রন্থের সুন্দর বিষয়বস্তু এবং কাব্যিক বিন্যাসে মুগ্ধ হবেন।

ধুন্ধুমার

$ 0.99 40% Off

Dwidhagrostho Pa Rakhi Pothe

Highlights:

ভূমিকাঃ

 

যে কথা অন্য কোনভাবেই প্রকাশ করা যায় না । যে কথা প্রকাশ করার জন্য কোন মাধ্যমের দরকার হয়ে পড়ে। যে কথা চার দেয়ালের মাঝে গুমরে গুমরে কাঁদে কখনো কখনো। এমনি একদিন বড় দুঃসময় কবিতা এসেছিল আমার ঘরে আত্মার আত্মীয় হয়ে। বন্ধু, সমাজ, সংসার, প্রিয়জন, স্বজন কেউ কোত্থাও একাকিত্বের স্বর শুনতে পায়নি যখন। নিঃসঙ্গতার সংগে মিশে যেতে যেতে যে কথা কবিতা হয়ে উঠেছিল। কবিতায় খুঁজে ফিরেছিল প্রেরণা, প্রত্যাশা বেঁচে থাকবার অবলম্বন। যে কবিতারা চোখে দেখেছিল অন্যায়, অবিচার, নির্যাতন, ধর্ষণ আবার সৌন্দর্যমহিত অবারিত ফসলের মাঠ, চিরসবুজ নিসর্গ, প্রকৃতি, ঋতু পরিবর্তন, মানবতার বন্ধন,  দেশ, রাজনীতি, নৈতিক শিক্ষা, কত শৈস্যের দীপ্তমহিত সম্ভার। কত স্মৃতি, চেনা -অচেনার সুস্থ প্রতিভার বিশালতা অন্তর্লীনে ঢেউ তুলে কখন যে গড়ে ওঠে কাব্য হয়ে কে তা জানে! স্বপ্ন তাই নতুন প্রত্যাশায় মেলেছে পাখা। লিখে যাব যতদিন প্রাণ আছে পদচ্ছাপ রেখে যাবার প্রত্যয়ে অর্ন্তদেশের অব্যক্ত বর্ণমালার সুনিপুণ কারিগর হয়ে প্রকৃতি ও প্রেমে।

দ্বিধাগ্রস্ত পা রাখি পথে

$ 0.99 40% Off

জলজ স্বাক্ষর

Highlights:

সৈয়দ রায়হান বিন ওয়ালী। লেখক নাম: সৈয়দ ওয়ালী। জন্ম: ১৭ই জানুয়ারি ১৯৬৭। জন্মস্থান: পুরাতন ঢাকা। পিতা: সৈয়দ ওয়ালী হোসেন সুলতান।  মাতা: সোহেলি ফেরদৌসী। পৈত্রিক ভিটে: কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালি উপজেলার ইসলামপুর গ্রাম।

 

বেড়ে উঠা: সৈয়দ ওয়ালীর শৈশবের প্রথম কয়েক বছর কাটে পুরাতন ঢাকার বংশালে। তবে দেশ স্বাধীন হবার বছর খানেক পর পারিবারিক আর্থিক সংকটের কারণে পিতার নানী-বাড়ি গাজীপুরের কালিয়াকৈর-জমিদার- বাড়ির গ্রামীণ পরিবেশে কাটে শৈশব ও  কৈশোরের পরবর্তী কয়েক বছর। যার সুবাদে সে শহর ও গ্রামের দ্বৈত জীবনের অভিজ্ঞতায় বেড়ে উঠার সুযোগ পায়। যে দ্বৈত-জীবনের অভিজ্ঞতার বিবিধ বৈশিষ্ট তার বিভিন্ন কবিতায় গদিয়ান। শিশুকাল থেকে সাহিত্যের অন্যান্য মাধ্যমের প্রতি তীব্র টান অনুভব করলেও মূলত যৌবনে এসেই সৈয়দ ওয়ালী ধীরে ধীরে কবিতা জগতের প্রতি মুগ্ধ হতে থাকে এবং নিজের কবিতা সৃজনের তৃষ্ণা নিজের ভেতর অনুভব করতে থাকে,  যে তৃষ্ণা পরিশেষে তাকে কবিতা চর্চায় নিমগ্ন করে; সৃষ্টিশীলতা শুরুর বছর বিচারে যা ইংরেজি বর্ষপঞ্জির ১৯৮৯/১৯৯০। সেই থেকেই সৈয়দ ওয়ালী কবিতার ভাব ভাষা ছন্দ ও শৈলী নিয়ে বিচিত্র পরীক্ষা নিরীক্ষা করা ও এইসব উপাদানের যথাযথ সমন্বয়ের মাধ্যমে সৃজন করে চলেছেন তার কবিতার নিজস্ব  ও স্বতন্ত্র এক জগৎ, যা আজ অবধি চলমান।

 

প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থঃ ‘তুমি ও তোমাদের হাত ছুঁয়ে ছুঁয়ে’, ‘বিনত খসড়া’।

……………………………

জলজ স্বাক্ষর

$ 1.06 40% Off

জীবনের বকেয়া বিল

Highlights:

আব্দুল্লাহ জামিল পেশায় একজন হৃদরোগ চিকিৎসক। ১৯৬১ সালের ২৬ জুলাই নরসিংদী জেলার রায়পুরার নোয়াবাদ গ্রামে মাতুলালয়ে জন্ম গ্রহন করেন শ্রাবন মাসের এক তুমুল বর্ষার দিনে। ছোটবেলায় গ্রামে কাটিয়েছেন কিছুদিন যার স্মৃতি আজো তাঁর কবিতায় দেখা যায়। তিনি SSC (১৯৭৯) ও HSC (১৯৮১) পাস করেন ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ থেকে। ১৯৮৮ সালে শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়, বরিশাল থেকে গইইঝ পাস করেন। তারপর FCPS (Internal Medicine) ও MD (Cardiology) ডিগ্রী অর্জন করেন যথাক্রমে ১৯৯৭ ও ২০০১ সালে। বর্তমানে Consultant –Interventional Cardiology হিসেবে একটি বেসরকারি হাসপাতালে কর্মরত আছেন।

 

ছাত্র জীবন থেকে লেখালেখি শুরু। পেশাগত প্রতিষ্ঠা অর্জন করতে গিয়ে লেখালেখি থেকে বহু বছর দূরে ছিলেন। গত চার বছরের কিছু বেশি সময় ধরে নিয়মিত লেখালেখি করেছেন। এটা উনার সপ্তম কাব্যগ্রন্থ।

 

প্রকাশিত অন্যান্য গ্রন্থ:

কাব্যনাট্য:

পুনরাবৃত্তি (ই-বই, অক্টবর, ২০১২)

কাব্যগ্রন্থ:

অরণ্যে যাবো গৌরী (একুশে বইমেলা, ২০১৩)

স্বপ্নের ফানুশ পুড়ে (একুশে বইমেলা, ২০১৪)

চলো অসম্ভবে যাই (একুশে বইমেলা, ২০১৫)

কোলাজ কার্টুন (একুশে বইমেলা, ২০১৫)

আড়মোড়া ভাঙে ঘুমন্ত শহর (একুশে বইমেলা, ২০১৬)

অতল মন (জুন, ২০১৬)

…………………………..

জীবনের বকেয়া বিল

$ 1.13 40% Off

Chhou Mukhosher Mukh

Highlights:

……………………………………….

ছৌ মুখোশের মুখ

$ 0.85 40% Off
1 2 3
Scroll To Top
Close
Close
Shop
Filters
0 Wishlist
0 Cart
Close

My Cart

Shopping cart is empty!

Continue Shopping