তোফায়েল তফাজ্জল

তোফায়েল তফাজ্জল
জন্ম: ৯ নভেম্বর ১৯৭০,
বাংলাদেশের ভালুকা, ময়মনসিংহে।

শৈশব থেকেই লেখালেখির তৃষ্ণা। যখন তিনি বাড়ির পাশের বৃক্ষগুলোতে চোখ বোলাতেন, সেগুলো কাছে যেতে ডাকতো তাঁকে। ছুঁয়ে দেখতে জোরাজুরি করতো নবপল্লবÑকী কোমল ভাবা যায়! পরস্পর বা পরম্পরা হাত মিলিয়ে, গলা মিলিয়ে থাকার উদাহরণ হয়ে ধরা দিতো এরা। মেঠো পথে, উন্মুক্ত মাঠে সবুজের সিঁড়ি, সেখানে পা ফেললে অপূর্ব আরাম; অথচ থেতলে যেতো ওরাÑকিন্তু প্রতিবাদী হতে দেখা যায়নি, মানুষকে ভালোবেসে। এমন কিছু বুঝতে দিতো তাঁকে।

তোফায়েল তফাজ্জল

Showing the single result

Show:

কালে বেড়ে ওঠা

Highlights:

আলতো ঠোঁটে ছড়িয়ে ছিটিয়ে দেয়া পাখিদের কলকাকলি, ঝরনার সুরেলা সংগীত, বৃষ্টির বেহালা বাজানো বা নূপুর নৃত্য, নদীর স্রোত বা ডায়মন্ডের মালা গাঁথা ঢেউ তাঁকে হাতছানি দিত, অহরহ। তখন ঘরে বসে থাকতে পারতেন না তিনি- ডাকে সাড়া দিতেন আগ্রহ চিত্তে, দিনে, রাতবিরেতে। এসবের সঙ্গ পান করতেন, বিমুগ্ধ নয়নে। একে অপরকে বুঝতেন। কথা বলতেন অফুরান।

চাঁদের বুড়ি তো নাতী সম্বোধন করে প্রায়ই টেনে নিয়ে যেতেন পড়ার টেবিল থেকে। আদরে-আপ্যায়নে ভরে দিতেন নৈঃশব্দের উঠোন, ঘরের ছাদ, পথঘাট কিংবা জলস্থলের বেশির ভাগ এলাকা। হাসি মাখা গল্প বাড়িয়ে দিতেন সুগোল বাটিতে। কখনো শহরের পাশ ঘেঁষে এঁকেবেঁকে যাওয়া ব্রহ্মপুত্রের কাছে টেনে নিয়ে যেতেন একাকী। আবার কখনো সদলবলে। ঢেউয়ে ঢেউয়ে নাচ তুলতেন। হেসে কুটিকুটি হতেন। এমন উপভোগে ভাগ বসাতে কার না মন চায়! জনৈক ভাবুক তো বটেই সাধারণ সৌন্দর্য-পিপাসুও পিপাসা নিবারণ করতে একশো ভাগ।

শহরের ব্যস্ততম জীবন, আর গ্রামের কিছুটা হালকা আমেজের মধ্যিখানেই তাঁর কেটে যাওয়া সময়ের সিংহভাগ। ফলে, তিনি এক হাতে গ্রহণ করছেন গ্রামীণ সারল্য, আর অন্য হাতে শহরে ব্যস্ততার সুলভ ও দুর্লভ দৃষ্টান্ত। তাঁর কবিতা পাঠে এ সবের মুখরিত ধ্বনি টের পায় পাঠক।
ইদানীং এর সঙ্গে যোগ হয়েছে বিদেশ-বিভুঁয়ের দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতাও। তাই বলা যায়, বহুমাত্রিক স্বাদে তাঁর লেখার উপাদান।

কালে বেড়ে ওঠা

$ 1.41 25% Off
Scroll To Top
Close
Close
Shop
Sidebar
0 Wishlist
0 Cart
Close

My Cart

Shopping cart is empty!

Continue Shopping